করোনায় ইউরোপের প্রথম মৃত্যু ফ্রান্সে 

ভয়াবহ করোনাভাইরাসে এবার ফ্রান্সে এক চীনা পর্যটকের মৃত্যু হয়েছে। গত বছরের ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনে মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ার পর এবারই প্রথম এশিয়ার বাইরে করোনায় আক্রান্ত কারো মৃত্যুর ঘটনা ঘটলো।এই মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন ফ্রান্সের স্বাস্থ্যমন্ত্রী আগনেস বুজেন।

মন্ত্রী আগনেস বুজেন বলেন, চীনের হুবেই প্রদেশের বাসিন্দা ৮০ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি ১৬ জানুয়ারি ফ্রান্সে আসেন। ২৫ জানুয়ারি তাকে প্যারিসের হাসপাতালে কোয়ারেন্টিন করে রাখা হয়।

এর আগে চীনের মূল ভূখণ্ডের বাইরে কেবল তিনটি দেশে- হংকং, ফিলিপাইন ও জাপানে- নতুন করোনাভাইরাসে মৃত্যু হয়।

তবে চীনের ভেতরে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেড় হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছে, যাদের বেশিরভাগই হুবেই প্রদেশের। আরও ২ হাজার ৬৪১ জন সংক্রমিত হয়েছে। এর ফলে চীনে ভাইরাসটিতে আক্রান্তের মোট সংখ্যা বেড়ে ৬৬ হাজার ৪৯২ জন হলো।

জানুয়ারির শেষের দিকে ১১ জনেক শনাক্ত করার মাধ্যমে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত প্রথম ইউরোপীয় দেশ হয়ে ওঠে ফান্স। এদের মধ্যে ছয়জন এখনও হাসপাতালে রয়েছেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, মারা যাওয়া ওই চীনা নাগরিক গুরুতর অবস্থায় উত্তর প্যারিসের বিসাত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। করোনাভাইরাসের কারণে ফুসফুসের সংক্রমণে তার মৃত্যু হয়। এই লোকের মেয়েও সংক্রমিত, তবে তিনি সুস্থ হয়ে উঠছেন।

ফ্রান্সে সংক্রিমত বাকি পাঁচজনই ব্রিটিশ নাগরিক যারা একটি রিসোর্টের একটি শ্যালেতে গিয়ে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়।

চীনের মূল ভূখণ্ডের বাইরে ২৪টি দেশে ৫০০ জনের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

সূত্র: বিবিসি

এমএআর/