ভারতে ভয়াবহ তুষারধসে নিহত বেড়ে ১৮, নিখোঁজ দুই শতাধিক

ভারতের উত্তরাখণ্ড রাজ্যে তুষারধসে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৮তে গিয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে ভয়াবহ এই তুষারধসের ঘটনায় ১৭০ জনের  মৃত্যুর আশঙ্কা করছেন রাজ্যের মুখ্যসচিব ওম প্রকাশ। কেননা এখনও নিখোঁজ রয়েছেন দুই শতাধিক মানুষ।

গত রবিবার দুপুরে হিমবাহ ভেঙে আচমকা তুষারধসের ফলে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় উত্তরাখণ্ডের বিস্তীর্ণ এলাকায়। প্রবল জলস্রোতে ভেসে যান ঋষিগঙ্গা জলবিদ্যুৎ প্রকল্পে কাজ করতে থাকা শতাধিক শ্রমিক। তাদের মধ্যে এখনও পর্যন্ত মাত্র ১১ জনের দেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। এখনও নিখোঁজ রয়েছেন ২০৩ জন।

সোমবার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াতের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে গালফ নিউজ।

রোবারের ওই তুষারধসের ফলে ধৌলিগঙ্গা ও অলকানন্দা নদীতে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। তখনই জানা গিয়েছিন বাঁধ ভাঙা বন্যায় কমপক্ষে ১৫০ জন নিখোঁজ হওয়ার কথা। এদের বেশিরভাগই শ্রমিক এবং তারা ঋষিগঙ্গা জলবিদ্যুৎ প্রকল্পে কাজ করছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে-আকস্মিক জলের তোড়ে তারা ভেসে গেছেন। সময় যত গড়াতে থাকে বাড়তে থাকে নিখোঁজের সংখ্যা। তাদের উদ্ধার করতে যুদ্ধকালীন তৎপরতায় উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে উত্তরাখণ্ড সরকার।

ভয়াবহ এই বিপর্যয়ে উত্তরাখণ্ড সরকারকে সবরকম সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াতকে টেলিফোন করে গোটা পরিস্থিতির খবর নিয়েছেন তিনি। আইটিবিপির জওয়ানরা বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর সঙ্গে উদ্ধারকাজে হাত লাগিয়েছেন। হেলিকপ্টারের মাধ্যমে চলছে উদ্ধারকাজ। নদী নতীরবর্তী লোকজনকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

এই ঘটনায় গত রোববারই দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। পরিস্থিতি উত্তরণে উত্তরখণ্ড রাজ্য সরকারকে সব ধরনের সহযোগিতারও আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

ওমেন্স নিউজ ডেস্ক/