দিল্লিতে অক্সিজেনের হাহাকার, হাসপাতালে মৃত্যুর প্রহর গুণছেন কোভিডের রোগীরা

ভারতের রাজধানী দিল্লির কমপক্ষে ছয়টি হাসপাতালে দেখা দিয়েছে চরম অক্সিজেন সঙ্কট। সেখানকার চিকিৎসকরা জানাচ্ছে, আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা, তারপরই ফুরিয়ে যাবে অক্সিজেন সরবরাহ। শুক্রবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে বিবিসি।

ওইসব হাসপাতালের ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে চিকিৎসাধীন কোভিড রোগীরা চরম আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন। কেননা অক্সিজেন ফুরিয়ে যাওয়া মানেই তাদের নিশ্চিত মৃত্যু।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কায় পুরোপুরি বিধ্বস্ত ভারত। দেশটিতে বর্তমানে করোনা আক্রান্ত ১ কোটি ৬০ লাখের বেশি মানুষ। প্রতিদিনই দুই লক্ষাধিক মানুষ নতুন করে সংক্রামিত হচ্ছেন। বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) একদিনে করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় বিশ্বরেকর্ড করেছে মোদির দেশ। ওইদিন নতুন করে করোনা আক্রান্তে হয়েছেন ৩ লাখ ১৪ হাজার ৮৩৫ জন।

এ অবস্থায় দেশজুড়ে দেখা দিয়েছে অক্সিজেন সঙ্কট। সঙ্কট মোকাবেলায় দিন কয়েক আগেই শিল্প কারখানায় অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এছাড়া দিল্লিতে অক্সিজেনের চাহিদা স্বাভাবিক করতে অন্যান্য রাজ্যে অক্সিজেন ট্যাঙ্কার সরবরাহ না করার আবেদন জানিয়েছে দিল্লির রাজ্য সরকার। বৃহস্পতিবার দিল্লির বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলে স্থানীয় সরকারের এই আবেদন প্রচার করা হয়েছে।

এদিকে এই সঙ্কট নিয়ে নিজের টুইটারে এক আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন ভারতের কোভিড আক্রান্ত রাজনৈতিক নেতা সৌরভ ভরদ্বরাজ। হিন্দিতে লেখা ওই স্ট্যাসাসে তিনি বলেন, ‘অনেক করোনা রোগী অক্সিজেনের সাহায্যে বেঁচে আছেন। অক্সিজেন না পেলে এইসব রোগী মারা যাবেন, যেভাবে মারা যায় পানি ছাড়া মাছ।’ তিনি দেশের এই সঙ্কটময় সময়ে সবাইকে একসাথে কাজ করারও আবেদন জানিয়েছেন।

কোভিড আক্রান্ত সৌরভ ভরদ্বরাজ যে হাসপাতালে ভর্তি আছেন সেখানেও চলছে অক্সিজেন সঙ্কট। আর মাত্র ৩ ঘণ্টা পরই ফুরিয়ে যাবে ওই হাসপাতালের অক্সিজেন। এই সময়ের মধ্যে প্রয়োজনীয় অক্সিজেনের সরবরাহ নিশ্চিত করতে না পারলে আরো অনেকের মতো মারা যাবেন ওই নেতাও।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কোভিড আক্রান্ত নেতা সৌরভ ভরদ্বরাজ

প্রসঙ্গত, ভারতের মধ্যে সেরা স্বাস্থ্যসেবা সুবিধা রয়েছে রাজধানী দিল্লিতে। কিন্তু করোনার ব্যাপকতার কারণে দিল্লির সেই উন্নত স্বাস্থ্যসেবাও আজ হুমকির মুখে পড়েছে।

ওমেন্স নিউজ ডেস্ক/

লাইক, কমেন্টস, শেয়ার দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন