ঈদে লাল চুড়ি আর ফিতা না পেয়ে শিশু বিথির আত্মহত্যা

শিশুর আত্মহত্যা

ফরিদপুর প্রতিনিধি

ঈদের দিন লাল চুড়ি ও ফিতা পরে বন্ধুদের সঙ্গে ঘুরে বেড়ানোর শখ হয়েছিল শিশু বিথির। সেজেগুজে বাবা-মায়ের সঙ্গে নানিবাড়ি বেড়াতে যাবারও ইচ্ছা প্রকাশ করেছিল সে। কিন্তু মা বলেছিল, ‘আজ নয়, কয়েক দিন পর কিনে দেবো তোর চুড়ি আর ফিতা।’

এতেই খুব অভিমান হয় ৮ বছরের শিশু বিথির। কিন্তু দিন কয়েকের বিলম্ব মেনে নিতে রাজি ছিল না সে। তাই তো মায়ের ওপর অভিমান করে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বিথি।

মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার বাগাট ইউনিয়নের গোহাইলপাড়ায়, বৃহস্পতিবার (৬ মে) দুপুরে।

বাগাট ইউনিয়নের গোহাইলপাড়ার ছমির শেখের মেয়ে বিথি কয়েকদিন ধরেই মায়ের কাছে বায়না ধরেছিল। ঈদের দিনে পরার জন্য তাকে লাল ফিতা ও চুড়ি কিনে দিতে হবে। বাবা মানুষের বাড়িতে কাজ করেন, মা স্থানীয় একটি জুট মিলের শ্রমিক।

হাতে টাকা না থাকায় মা বলেছিল, জুট মিল থেকে বেতন পেয়ে কিনে দেবে। সে পর্যন্ত আর দেরি সয়নি বিথির। বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সবার অজান্তে বাড়ির চারচালা টিনের ঘরের আড়ার সঙ্গে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে সে।

শিশুটির মা আসমা বেগম কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, ঈদের দিন লাল চুড়ি, ফিতা পড়বে বলে আমার কাছে আবদার করেছিল। আমি বলেছিলাম মারে আমি বেতন পেলে তোকে ঈদের আগেই সবকিছু কিনে দেব। কিন্তু মেয়ে আমার অভিমান করে আত্মহত্যা করবে ভাবতে পারিনি।

মধুখালী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রথিন্দ্রনাথ তরফদার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বিষয়টি খুবই মর্মান্তিক। মানবিক দিক বিবেচনা করে ময়নাতদন্ত ছাড়াই বিথির মরদেহ দাফনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ওমেন্স নিউজ ডেস্ক/