সুরাইয়া চৌধুরীর কবিতা ‘লালন হাওয়া’

সুরাইয়া চৌধুরী

লালন হাওয়া

যদি রাশিতেই লেখা থাকে বাতাসের কথা
তবে আমি কেন আগুন বা মাটি হতে যাব।
মাঝে মাঝে ভিন্ন এক বোধ জেগে ওঠে
পবিত্র  বাতাস যেন মন  ছুঁয়ে  যায়
 ইছামতী ভেজা জল শরীরে মেখে
ফিরে আসি অহরহ ধানের বাতাসে।

পাহাড়ের গা ঘেসে ভেজা মাটি শুঁকে
উড়ে যাই যতদূর মনের  আকাশে।
পুকুরে ঢেউ দোলে ঝিরিঝিরি বায়
নম্র বাতাস ভাঙে জলের  সিথান।
উড়ে যায় কুন্তল ঝরা পাতা ফুল
হলুদ স্বর্ণলতা জোনাক পোকা
সাথে যেন আরও কত  কিছু।
অহরহ মনজুড়ে সবুজ বাতাস
ভালবাসি বাতাসের উধাও স্বভাব।
 বাতাসেই কান পেতে শুনেছি আমি
বিষণ্ণ দুপুর করে মঙ্গল পাঠ।
রাতের স্তব্ধতায় নিমগ্নের সুর
ভাললাগা বাতাসের ভালবাসা গান।
আবাহন অর্পণ ফুল্ল প্রার্থনা
বাতাসেই গড়েছি, স্বপ্ন পুরাণ

কবি পরিচিতি: সুরাইয়া চৌধুরী কবিতা লিখছেন ষাটের দশক থেকে।  ইতিমধ্যে তার পাঁচটি  কাব্যগ্রন্থ ও দুটি শিশুতোষ  ছড়ার বই প্রকাশিত  হয়েছে। এবারের একুশে গ্রন্থমেলায়  তার রক্ত ফুল,  শিলায় জ্বলবে আলো এবং প্রত্ন নগরে যাব শিরোনামে ৩টি কাব্যগ্রন্থ  প্রকাশিত হতে চলেছে। পেশাজীবনে তিনি একজন শিক্ষক। শিক্ষকতা করেছেন  ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ ও ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজসহ দেশের শীর্ষ স্থানীয় স্কুলে। বর্তমানে অবসর জীবনে লেখালেখি নিয়েই ব্যস্ত আছেন।

ওমেন্স নিউজ সাহিত্য /