আজ বিশ্ব থিয়েটার দিবস

আজ ২৭ মার্চ বিশ্ব থিয়েটার দিবস। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও পালিত হচ্ছেে আন্তর্জাতিক এই দিবসটি।

১৯৮২ সাল থেকে বাংলাদেশে দিবসটি উদযাপিত হয়ে আসছে। ইন্টারন্যাশনাল থিয়েটার ইনস্টিটিউট (বাংলাদেশ কেন্দ্র), শিল্পকলা একাডেমি, গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশান এবং পথনাটক পরিষদ সম্মিলিতভাবে দিবসটি উদযাপন করে থাকে।

থিয়েটারের মূল্য ও গুরুত্বকে সমাজের কাছে তুলে ধরার উদ্দেশ্যে ইন্টারন্যাশনাল থিয়েটার ইনস্টিটিউট (আইটিআই) ১৯৬১ সালে বিশ্বব্যাপী এই দিন উদযাপন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। পরের বছর থেকে বিশ্বব্যাপী দিনটি পালিত হয়ে আসছে। সেই হিসেবে আজ পালিত হচ্ছে  বিশ্ব থিয়েটারের ৬০তম দিবস।

এই দিনে আইটিআই প্রতিবছর বিখ্যাত থিয়েটার শিল্পীর মাধ্যমে থিয়েটারের ভবিষ্যৎ ও ভাবনাচিন্তা একটি বার্তার মাধ্যমে প্রকাশ করে। ১৯৬২ সালে  থিয়েটার শিল্পী জেইন কোকটিওর মাধ্যমে প্রথম বার্তাটি প্রেরণ করা হয়। আইটিআই এর বিশ্বব্যাপী ৮৫টির বেশি কেন্দ্র রয়েছে। কলেজ, স্কুল, থিয়েটার পেশাদারদের এই দিনটি উদযাপন করতে উৎসাহ প্রদান করে সংস্থাটি।

এই দিনটি উদযাপন করা হয় তাদের জন্য যারা থিয়েটার, শিল্পের মান ও গুরুত্ব নিরূপন করতে পারেন এবং সরকার, রাজনীতিবিদ এবং প্রতিষ্ঠানগুলিকে জাগ্রত করতে সাহায্য করেন, যারা এখনও জনগণের কাছে তার মূল্যকে স্বীকৃতি দেয়নি এবং এখনও অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির জন্য তার সম্ভাবনা উপলব্ধি করেনি।

বিশ্ব থিয়েটার দিবসের লক্ষ্য হচ্ছে-বিশ্বের বিভিন্ন শিল্পগুলির গুরুত্ব  তুলে ধরা; জনসাধারণকে  শিল্পের গুরুত্ব সম্পর্কে সচেতন করা; নাচ এবং থিয়েটার সম্প্রদায়গুলিকে একটি বিস্তৃত স্কেলে তাদের কাজ উন্নীত করার জন্য  সক্ষম করা এবং নিজের জন্য শিল্পকলাকে উপভোগ করা।

বিশ্ব থিয়েটার দিবসের এবছরের বার্তা

বিশ্ব থিয়েটার দিবসে আইটিআই `থিয়েটার এবং শান্তির সংস্কৃতি' থিমের উপর ভিত্তি করে ৫০টিরও বেশি ভাষায় বিশ্বব্যাপী এক বার্তা প্রকাশ করে থাকে। এই বছরের বার্তা লেখক হলেন যুক্তরাষ্ট্রের অপেরা, থিয়েটার এবং ফেস্টিভাল ডিরেক্টর পিটার সেলার্স।

সেলার্স তার বার্তায় বলেছেন-‘যেমন পৃথিবী ঘন্টার পর ঘন্টা সংবাদ প্রতিবেদনের দৈনিক ড্রিপ-ফিডে স্তব্ধ হয়ে যায়, আমি কি আমাদের সকলকে, নির্মাতা হিসাবে, মহাকাব্য সময়ের, মহাকাব্য পরিবর্তন, মহাকাব্য সচেতনতার আমাদের সঠিক সুযোগ এবং ক্ষেত্র এবং দৃষ্টিভঙ্গিতে প্রবেশ করার জন্য আমন্ত্রণ জানাতে পারি?’

বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারীর কারণে গত দু’বছর ধরে নানা আর্থিক সঙ্কটে রয়েছেন থিয়েটার কর্মীরা।  এই বার্তার মাধ্যমে থিয়েটার কর্মীদের নানা সঙ্কট কাটিয়ে তোলার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন পিটার সেলার্স।

ওমেন্স নিউজ ডেস্ক/