হারনেট টিভির বিশেষ আয়োজন-লিঙ্গ সমতা নিয়ে তরুণদের ভাবনা

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্বাধীনতা ও লিঙ্গ সমতা নিয়ে কি ভাবছেন এ সময়ের তরুণরা? এ নিয়ে বৃহস্পতিবার (৩১মার্চ) এক মনোজ্ঞ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলো হারনেট টিভি। বিশাল কলেবরে আয়োজিত YOUTH EXPRESS (Independence Meets Gender Equality) নামক ওই অনুষ্ঠানে স্বাধীনতা দিবস, লিঙ্গ সমতা ও সন্তানদের সঙ্গে অভিভাবকদের সম্পর্ক-সহ সমাজের সমসাময়িক নানা ইস্যু তুলে ধরা হয়।

গোটা অনুষ্ঠানটি ভাগ করা হয়েছিলো মোট তিনটি প্যানেলে। প্রথম প্যানেলটিতে অংশ নেয় বিভিন্ন বয়সী শিশুরা যাদের অধিকাংশই রাজধানীর ইংরেজি স্কুলের শিক্ষার্থী। তারা দেশের স্বাধীনতা, লিঙ্গ সমতা ও বুলিংয়ের মতো সিরিয়াস বিষয়ে নিজেদের মতামত সুন্দরভাবে তুলে ধরে। ছোট ছোট বাচ্চাদের নিজস্ব ও আধুনিক চিন্তাধারাকে করতালির মাধ্যমে স্বাগত জানায় অডিয়েন্স। পাশপাশি গিটার, পিয়ানো বাজিয়ে শিশুরা তাদের মেধার প্রকাশ ঘটায়। এটি সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন হারনেট টিভির প্রধান সম্পাদক আলিশা প্রধান এবং  সিঙ্গাপুর স্কুলের কারিকুলাম ট্রেনার ফাতেমা তাবাসসুম।

দ্বিতীয় প্যানেলটি পরিচালিত হয় অভিবাবক ও তাদের তরুণ বয়সী ছেলেমেয়েদের সমন্বয়ে। এতে মোট দুইজন ছেলে ও তাদের মা এবং বাবাসহ উপস্থিত হয়েছিলেন একজন কন্যাসন্তান। এইসব ছেলেমেয়েরা বলেন তাদের বাবা-মায়েদের নিয়ে এবং অন্যদিকে বাবা-মায়েরাও খুলাখুলি আলোচনা করেন নিজেদের ছেলেমেয়েদের নানা বিষয়ে। এই প্যানেলের আলোচনায় বর্তমানে বাচ্চাদের জন্য কি ধরনের প্যারেন্টিং প্রয়োজন তারও একটি দিক নির্দেশনা ওঠে আসে। এই আয়োজনে একাই অংশ নিয়েছিলেন ঝিল নামের বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া তরুণী। তিনি সন্তানদের স্বাধীনতার কথা বলতে গিয়ে বলেন- ‘সন্তানদের পুরোপুরি বিশ্বাস করতে হবে বাবা-মায়েদের। একই সঙ্গে দিতে হবে সম্পূর্ণ স্বাধীনতা।’ তিনি কেমন স্বাধীনতা চান তার উদাহরণ দিতে গিয়ে বলেন- ধরুন, আমাকে আমার বাবা-মা একজোড়া পাখা লাগিয়ে দিয়ে একটা খাঁচায় ভরে বললেন- তোমাকে স্বাধীনতা দেয়া হলো। এখানে তুমি যত খুশি উড়তে পারবে। এটা কিন্তু কোনও স্বাধীনতা নয়। স্বাধীনতা মানে সম্পূর্ণ স্বাধীনতা দিতে হবে এবং একই সঙ্গে সন্তানদের ওপর রাখতে হবে আস্থা। নইলে অভিভাকদের সঙ্গে সন্তানদের দূরত্ব দিনে দিনে বেড়েই যাবে, কমবে না।

এভাবে বাবা-মা ও সন্তানদের অংশগ্রহণে জমে উঠেছিলো প্যানেল দুইয়ের আলোচনাটিও। এটি সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন স্কলাস্টিকা স্কুলের সাবেক ভাইস প্রিন্সিপাল ফরিদা মনি শহিদুল্লাহ। তিনি অংশগ্রহণকারী ছেলেমেয়েদের কাছে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস, ভাষা দিবসসহ নানা বিষয়ে জানতে চান। সবার স্বতস্ফূর্ত অংশগ্রহণে জমে ওঠে হারনেট টিভির এই আয়োজনটিও।

নাট্যকার ও পরিচালক, অভিনেতা, উপস্থাপক, ইউটিউবারসহ এ সময়ের বিভিন্ন সেলিব্রেটিদের মুক্ত আলোচনায় জমে উঠেছিলো অনুষ্ঠানের শেষ পর্ব অর্থাৎ প্যানেল-৩য়ের আলোচনা। এতে যারা অংশ নিয়েছিলেন তারা হলেন-সালমান মুক্তাদির, ডন সামদানী, রাবা খান, রাফায়েদ রাকিব, শিরিন শিলা, তানিম রহমান, পিয়া জান্নাতুল, এসনা হাবিব ভাবনা। তারা আমাদের সমাজের চলমান লিঙ্গ বৈষম্য, ও বডি শেমিং নিয়ে খোলাখুলি নিজেদের নানা অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন। আধুনিক ও স্বচ্ছ সমাজ বির্ণিমানের স্বার্থে নানা নারী-পুরুষের মধ্যকার বৈষম্য কাটিয়ে ওঠার বিষয়ে সবাই একমত প্রকাশ করেন। একই সাথে তারা লিঙ্গ-সমতা নিয়ে সচেতনতামূলক দিক নির্দেশনাওে দেন।  

অনুষ্ঠানে হারনেট টিভির চেয়ারম্যান হোসনা প্রধান উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানের পরিকল্পনাকারী হারনেট টিভির ফাউন্ডিং সিইও আলিশা প্রধান বলেন, হারনেট টিভি ভবিষ্যতে এমন আরো অনেক ইভেন্ট করবেন যেখানে তরুণ, নবীন ও প্রবীণরা সামাজিক সচেতনতা মূল্যবোধে অগ্রণী ভূমিকা রাখার সুযোগ পাবেন। অনুষ্ঠানের সবশেষে অংশগ্রহণকারী শিশু কিশোরদের মধ্যে সার্টিফিকেট ও পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

ওমেন্স নিউজ ডেস্ক/

লাইক, কমেন্টস, শেয়ার দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন