বিশ্বজুড়ে ইফতারে কেন এত জনপ্রিয় খেজুর?

খেজুর

আমাদের দেশে ইফতারে একটি অন্যতম জনপ্রিয় আইটেম খেজুর। কেবল আমাদের দেশে নয়, বিশ্বের মোটুমুটি সব দেশেই খেজুর দিয়ে ইফতার করে থাকেন ধর্মপ্রাণ মুসলিমরা। আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহম্মদ (স.) নিজেও ইফতার ভাঙতেন খেজুর দিয়ে। ফলটি জনপ্রিয় হওয়ার পিছনে এই ধর্মীয় বিষয়টি ছাড়াও আরও বেশ কিছু কারণ রয়েছে, যেগুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে খেজুরের পুষ্টিগুণ। সারাদিন রোজা রাখার পর এমন কিছু খাওয়া জরুরি, যা কম সময়ে শরীরে কর্মশক্তি জোগায়। এজন্য খেজুর খুব উপযোগী একটি খাদ্য। চলুন তাহলে জেনে নেই খেজুরের নানা পুষ্টিগুণ। ।

১.  রোজায় দীর্ঘসময়য়ের জন্য না খেয়ে থাকার ফলে শরীরে গ্লুকোজ এর ঘাটতি অনুভূত হয়। খেজুরে থাকা প্রচুর পরিমাণ গ্লূকোজ পূরণ করতে পারে সে ঘাটতি।

২.খেজুরে রয়েছে প্রচুর আয়রন। প্রতিদিন খেজুর খাওয়ার অভ্যাস দেহের আয়রনের অভাব পূরণ করে এবং রক্তস্বল্পতা রোগের হাত থেকে রক্ষা করে। যাদের এই রক্তস্বল্পতার সমস্যা রয়েছে তাদের প্রতিদিন খেজুর খাওর অভ্যাস করা উচিত।

৩.খেজুর হজমশক্তি বাড়াতে সক্ষম। সারাদিন না খাওয়ার পর সন্ধ্যায় ইফতারে ভালমন্দ খাওয়ার চল রয়েছে গোটা বিশ্বেই। বিশেষ করে নানা ধরনের ফল এবং ভাজাভুজি খান অনেকে। xসে সব খাবার হজম করতে সাহায্য করে এই ফলটি।

৪.খেজুরে রয়েছে পুষ্টির নানা উপাদান। বিশেষ করে টানা উপোসের সময়ে শরীরের ফাইবার প্রয়োজন। খেজুরে আছে ডায়েটরই ফাইবার যা কলেস্টোরল থেকে মুক্তি দেয়। ফলে ওজন বেশি বাড়ে না, সঠিক ওজনে শরীরকে সুন্দর রাখা যায়।

৫.রোজা মানেই সারা দিন কিছু না খেয়ে থাকা। কিন্তু দিনের কাজ তো চালিয়ে যেতে হয়। তার জন্য শরীর সচল রাখতে হবে। খেজুরে রয়েছে ম্যাগনেশিয়াম, আয়রন, ভিটামিন। এই তিনটি উপাদান শরীর সচল রাখে।

৬. খেজুরে উপস্থিত রয়েছে ক্ষারীয় লবণ। তা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। নিয়ন্ত্রণ করে রক্তে শর্করার মাত্রাও। খেজুরে থাকা প্রচুর পরিমাণ শর্করা  শারীরিক দূর্বলতা দূর করতে সাহায্য করে।

৭.হৃদপিণ্ডের সমস্যা দূর করতে প্রতিদিন খেজুর খাওয়া অত্যন্ত জরুরি। সারারাত খেজুর পানিতে ভিজিয়ে সকালে পিষে খাওয়ার অভ্যাস হার্টের রোগীর সুস্থতায় কাজ করে।

৮. খেজুর বিভিন্ন ক্যান্সার থেকে শরীরকে সুস্থ রাখতে অনেক ভূমিকা পালন করে থাকে। যেমন খেজুর লাংস ও ক্যাভিটি ক্যান্সার থেকে শরীরকে দূরে রাখতে সাহায্য করে।

৯. খেজুরে আছে পর্যাপ্ত পরিমাণে ক্যালসিয়াম যা আপনার হাড়, দাঁত, নখ ইত্যাদি ভালো রাখতে সহায়তা করবে।

১০.খেজুরে বিদ্যমান প্রচুর পরিমাণ পটাশিয়াম আমাদের শরীরের নার্ভ সিস্টেম কে সচল রাখার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

ওমেন্স নিউজ ডেস্ক/

লাইক, কমেন্টস, শেয়ার দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন