জিল্লুর রহমান প্রামানিকের কবিতা ‘শৈশবের ঈদ’

জিল্লুর রহমান প্রামানিক

শৈশবের ঈদ

ছবির ভেতর এক বুক নদী
এক গণ্ডূষ কবোষ্ণ নীল নীল উজালা ঢেউ
নির্গৃহ চোখের ভেতর বয়সী চশমার ফাঁকে
উচ্ছল উৎপল-দুর্বিনীত স্বপ্নরা যেনো
কালের  'শৈশবের ঈদ '
আমার ইচ্ছের – কল্পনার 'মোরবিডিটি' বনে
প্রথম ভালোলাগা সে আনন্দের
বিমূর্ত দিগন্তের রোদ খেলানো জরায়ু ভেদ করে
শেষ নিঃশ্বাসের কদম ফেলে কহর কসমে- নির্ঘৃণ নির্দ্বন্দ্ব মেঘের ফলায় নতুন জামা,সুরমা,আর সেলামি
সে আজ অতীত!
হলুদ রক্ত সিতারার ঠোঁটে
বরফ কাফনে ঢাকা আসমান
মুক্ত পাখির ডানায় খেলে আমার খোয়া যাওয়া
স্বপ্নের অগোছালো হীম- শীতল এক অনন্য ক্লীব শরীর
নিশিগন্ধা জেনে গেছে ধূপের জাদুকরী গন্ধ
চোখের পাতায় যেকোনো সময় নামতে পারে
নিরজা আঁধারিয়া তুফান
আঘাত হানতে পারে আমার বুকের
সফেদ নীলাম্বু সৈকতে
তবুও একজোড়া চোখ অপলক চেয়ে চেয়ে
পৃথিবীর সৌন্দর্য গিলে খায়
শেষ পর্যন্ত দূর বহু দূর;অস্তিত্বহীন উন্মগ্ন জলের
দুর্জ্ঞেয় শরীরের ভেতর
উন্মীলিত চোখের আলোয় তবুও দেখে
শেষ নিঃশ্বাসে- বিহরা চোখের ভেতর ঈদগা মাঠের ধারে
ফেলে আসা ভালোবাসার
বিকম্পিত ঠোঁটে একটি পাখির বিনম্র কদমবুসি!
অতঃপর 'কৈশোর ' এসে ভাসিয়ে নিয়ে যায়
আমার অন্তরের অন্তর!
তবুও আমি উন্মগ্ন- উন্নিদ্র মাছের মতো
চোরাই উশাসের ভেতর চেয়ে থাকতে চাই
সেই শৈশবের ঈদকে দেখতে চাই
অনাদি অনন্ত- এভাবেই  !

লেখক পরিচিতি: জিল্লুর রহমান প্রামানিকের জন্ম গাইবান্ধা জেলায়। অনেকদিন ধরেই তিনি লেখালেখির সাথে জড়িত। নীলাম্বরে নীলপরী, বুকের গহীনে,মহাঢেউ, তার যৌথ কাব্যগ্রন্থ। ২০২০ সালে জাতীয় গ্রন্থমেলায় তার একক কাব্যগ্রন্থ ‘ফোঁটায় ফোঁটায় উষ্ণ কিছু জল’ প্রকাশিত হয়েছে। বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় তিনি নিয়মিত লেখালেখি করেন।

ওমেন্স নিউজ সাহিত্য/