সোভিয়েত ইউনিয়নের সর্বশেষ নেতা মিখাইল গর্বাচেভ মারা গেছেন

মিখাইল গর্বাচেভ

সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের সর্বশেষ প্রেসিডেন্ট মিখাইল গর্বাচেভ ৯১ বছর বয়সে মারা গেছেন। দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকার পর স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (৩০ আগস্ট) সন্ধ্যায় মস্কোর সেন্ট্রাল ক্লিনিকাল হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। সূত্র-বিবিসি

গর্বাচেভের পরিবারের ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র সংবাদমাধ্যম তাসকে জানিয়েছে, মস্কোর নোভোদেভিচি সমাধিক্ষেত্রে তার স্ত্রী রাইসার পাশে তাকে সমাহিত করা হবে। রাইসা ১৯৯৯ সালে মারা যান।

এদিকে, গর্বাচেভের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ এক বিবৃতিতে জানান, গর্ভাচেভের মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেছেন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এ বিষয়ে পুতিন আনুষ্ঠানিকভাবে গর্বাচেভের পরিবারের সদস্যদের কাছে শোকবার্তা পাঠাবেন।

মিখাইল গর্বাচেভ ১৯৮৫ সাল থেকে ১৯৯১ সাল পর্যন্ত সোভিয়েত ইউনিয়নের সর্বশেষ নেতা এবং প্রেসিডেন্ট ছিলেন। তিনি পূর্ববর্তী কনস্তান্তিন চেরনেনকোর মৃত্যুর পর ১৯৮৫ সালে ৫৪ বছর বয়সে ক্ষমতায় আসেন। এ সময় তিনি সোভিয়েত ইউনিয়নের কমিউনিস্ট পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও প্রধান নেতা নিযুক্ত হন।

গর্বাচেভ ১৯৮৫ সাল থেকে ১৯৯১ সাল পর্যন্ত পতনের আগ পর্যন্ত সোভিয়েত ইউনিয়নের নেতৃত্ব দেন। তার পদত্যাগের মধ্য দিয়ে সোভিয়েত ইউনিয়নের পতন হয় এবং স্নায়ুযুদ্ধের অবসান হয়।

১৯৮৫ সালে সোভিয়েত কমিউনিস্ট পার্টির সাধারণ সম্পাদক হওয়ার পর গর্বাচেভ কিছু রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক স্বাধীনতার সুযোগ দিয়ে শাসন ব্যবস্থাকে পুনরুজ্জীবিত করার চেষ্টা করেন। তিনি ১৯৮৯ সালে সোভিয়েত ইউনিয়নভুক্ত পূর্ব ইউরোপের দেশগুলিতে গণতন্ত্রপন্থি বিক্ষোভ দমনে শক্তি প্রয়োগ করা থেকেও বিরত ছিলেন। কিন্তু পরবর্তী দুই বছরের মধ্যে সোভিয়েত ইউনিয়নের পতন শুরু হয়। আর এ কারণেই সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের জন্য তাকেই দায়ী করা হয়ে থাকে।

ওমেন্স নিউজ ডেস্ক/